১৬ বছর বয়সেই ৪টি বিয়ে করেছে রানা!

মাত্র ১৬ বছর বয়সে ৪টি বিয়ে করে এলাকায় রীতিমত আলোড়ন সৃষ্টি করেছে রানা নামের এক কিশোর। তবে আগের তিন স্ত্রী-কে তালাক দিয়েছে সে। এরপর সর্বশেষ গতমাসে অষ্টম শ্রেণী পড়ুয়া এক মেয়েকে বিয়ে করেছে সে।



নিজের বয়স ১৬ বছর হলেও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ থেকে সনদ জালিয়াতি করে বয়স বাড়িয়ে একের পর এক বিয়ে করছে রানা। এ নিয়ে বিচার-শালিসও হয়েছে। নাবালক ছেলেকে বারবার বিয়ে দেওয়ায় বাবা রাশেদকে আটক করেছে পুলিশ। কুষ্টিয়া জেলার মিরপুর উপজেলার ফুলবাড়িয়া ইউনিয়নের ফুলবাড়িয়া গ্রামের রাশেদের ছেলে আলোচিত এই রানা।

ভিডিওতে দেখুন নিজের ৪ বউ নিয়ে কি বলছে রানা

রানার গ্রামে তার পরিবার ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, রানা রাজমিস্ত্রির কাজ করে। ২০১৮ সালের জানুযারি মাসে সে ভেড়ামারা উপজেলায় প্রথম বিয়ে করে। বিয়ের কয়েক মাস পর প্রথম সংসার ভেঙ্গে যায়। এরপর মিরপুর উপজেলার কচুবাড়িয়ায় দ্বিতীয় বিয়ে করে। সেই স্ত্রীও নানা কারনে চলে যায় ৫ মাস পর।

এর কয়েকমাস পর দৌলতপুর উপজেলার খলিসাকুন্ডিতে সে তৃতীয় বিয়ে করে। সে সংসারও টেকেনি। এরপর সর্বশেষ গত মাসের ২০ তারিখে ভেড়ামারায় মৌসুমী নামের এক অষ্টম শ্রেণী পড়ুয়া মেয়েকে বিয়ে করে রানা।

ভিডিওতে দেখুন কি বলছেন রানার বাবা

রানার বাবা কৃষি শ্রমিক রাশেদ বলেন, ছেলের জন্ম তারিখ আমার মনে নেই।

গত দেড় বছরে ছেলে ৪টি বিয়ে করেছে জানিয়ে তিনি বলেন, প্রথম দুই বউ চলে যাওয়ার পর আমি বিয়ে দিতে চাইনি। তার মায়ের পিড়াপিড়িতে বিয়ে দিয়েছি।

রানার মা রেহেনা খাতুন রেনু বলেন, "আমার ছেলের বিয়ে আমি দিমু, তাতে আপনের সমস্যা কি? ছেলে বিয়ে করতে চাইছে, তাই বিয়ে দিছি। এখানে বাইরের লোকের এত মাথা ব্যাথা কেন!"

ভিডিওতে দেখুন কি বলছেন রানার মা

মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জামাল আহমেদ বলেন, বিষয়টি খুবই স্পর্শকাতর। দেড় বছরে একটি ছেলে ৪টি বিয়ে করেছে, তাও আবার সে নাবালক। খুবই গুরুত্ব সহকারে বিষয়টি দেখা হচ্ছে।