‘লাশ সেজে’ স্বামীর ঘর ছেড়ে এখন প্রেমিকসহ জেল

স্বামীর ঘর ছেড়ে প্রেমিকের সঙ্গে পলায়ন- সমাজে হরহামেসাই ঘটে এমন ঘটনা; কিন্তু প্রেমিকের সঙ্গে স্থায়ীভাবে থাকতে নাটোরের এই গৃহবধূ সাজিয়েছেন এমন এক ‘নাটক’, যা একেবারেই আলাদা। তাকে হত্যা করা হয়েছে এবং সেটি বিশ্বাসযোগ্য করতে ‘লাশ হয়ে’ ছবিও তুলিয়েছেন। আর সেই ছবি সামাজিক যোগাগমাধ্যম ফেসবুকে প্রকাশ করিয়েছেন। এই ফন্দিতে অবশ্য শেষরক্ষা হয়নি। প্রেমিকসহ তাকে যেতে হয়েছে শ্রীঘরে।



নাটোর এসপির অফিস চত্বরে বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা জানান, বুধবার রাতে নাটোর জেলা পুলিশ ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া থেকে প্রেমিক আবিদসহ গৃহবধূ মুক্তিকে আটক করে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদের আদালতে হাজির করা হয়। আদালত তাদের জেলহাজতে পাঠান।


এসপি জানান, পাবনা জেলার ঈশ্বরদী এলাকার বাসিন্দা আকমল হোসেন ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি। কর্মসূত্রে তিনি নাটোরে বসবাস করেন। তার স্ত্রী মুক্তির সঙ্গে ফেসবুকে পরকীয়া গড়ে ওঠে ময়মনসিংহের ক্যাবল ব্যবসায়ী আবিদের। গত ১১ মে মুক্তি তার বাবার বাড়ি সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার কোন্দইল যেতে চান। এ জন্য আকমল হোসেন নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার রাজাপুরে লেগুনায় তুলে দেন। প্রেমিক আবিদ সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল থেকে মুক্তিকে মাইক্রোবাসে ময়মনসিংহে নিয়ে যান।



পুলিশ সুপার আরও জানান, প্রেমিকের সঙ্গে স্থায়ীভাবে থাকার জন্য কৌশল আঁটেন মুক্তি। তাকে হত্যা করা হয়েছে- এই তথ্য প্রকাশ করতে ‘লাশ সাজেন’ তিনি। আর সেই লাশের ছবি সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। পাশাপাশি প্রেমিক আবিদকে দিয়ে ওই ছবি ও হত্যার খবর স্বামীর পরিবারের কাছে পাঠান। গত ১১ মে বড়াইগ্রাম থানায় একটি হত্যা মামলা করেন ওই গৃহবধূর স্বামী আকমল হোসেন।