সিলেটে করোনায় বিএনপি নেতার মৃত্যু

সিলেটে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দবির মিয়া (৬৫) নামে এক বিএনপি নেতা মারা গেছেন। গতকাল রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে সিলেট শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের আইসোলেশন সেন্টারে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।



দবির মিয়ার বাড়ি সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার তেতলি ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর গ্রামে। তার আরেক ভাই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের আইসোলেশন সেন্টারে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সহসভাপতি আব্দুল হাছিব জানান, দবির মিয়া তেতলি ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি ছিলেন। এ ছাড়া তিনি নগরের সোবহানীঘাট নোয়াব আলী সবজি মার্কেটের পাইকারি ব্যবসায়ী ছিলেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. হিমাংশু লাল রায় বলেন, রোববার সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে তার নমুনা পরীক্ষায় করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। পরে রাত ৯টার দিকে তিনি শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের আইসোলেশন সেন্টারে ভর্তি হন এবং সাড়ে ১০টার দিকে তার মৃত্যু হয়।


প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এই নিয়ে সিলেট বিভাগে মোট সাতজনের মৃত্যু হলো। সিলেট বিভাগে সর্বপ্রথম করোনাভাইরাস ধরা পড়ে গত ৫ এপ্রিল। সিলেটের প্রথম রোগী হিসেবে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মঈন উদ্দিন শনাক্ত হন।

এই বিভাগে এ পর্যন্ত করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪১৮ জন। এর মধ্যে সিলেট জেলায় ১৫৪ জন, সুনামগঞ্জে ৭৪, হবিগঞ্জে ১২৯ ও মৌলভীবাজার জেলায় ৬১ জন।

করোনাভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরে গেছেন ৮২ জন। এর মধ্যে সিলেট জেলায় ১৬ জন, সুনামগঞ্জে ২৯, হবিগঞ্জে ৩৫ জন এবং মৌলভীবাজার জেলায় দুজন।