করোনা আতঙ্কের মধ্যেও ধর্ষণ !

ঢাকা থেকে বাড়ি ফেরার পথে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের লক্ষীগঞ্জে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে এক নারীকে (৪২) ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।



বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ রাতেই এতে জড়িত থাকার অভিযোগে একজনকে আটক করেছে।


পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, গণপরিবহন বন্ধ থাকায় নানা ঝক্কি ঝামেলা পেরিয়ে ঢাকা থেকে কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে গ্রামের বাড়িতে যাচ্ছিলেন ওই নারী। তিনি ঢাকায় একটি বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ করতেন। করোনার কারণে কাজ থেকে বিদায় করে দেয়ায় সকালে রওনা দিয়ে ঈশ্বরগঞ্জ আসতেই রাত হয়ে যায়। কোনো রকমে লক্ষীগঞ্জ বাজারে এসে যানবাহন না পেয়ে হেঁটেই বাড়ির দিকে রওনা দেন তিনি। এ সময় তাকে রাস্তা থেকে তুলে পাশের জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করে এক বখাটে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই নারীকে উদ্ধার করে।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোখলেছুর রহমান জানান, রাতেই এতে জড়িত থাকার অভিযোগে একজনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় এক ধর্ষক ও তার চার সহযোগির নামে ঈশ্বরগঞ্জ থানায় মামলা দায়েরে করা হয়েছে।


এ বিষয়ে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাকির হোসেন ফেসবুকে লিখেন, ‘ঘড়িতে তখন রাত ১১ টার বেশি। হোম কোয়ারেন্টিন পরিস্থিতি তদারকি করে বাসায় ফিরছিলাম। গাড়িতে বসেই দূর থেকে লক্ষিগঞ্জ বাজারে কিছু মানুষের জটলা দেখতে পাচ্ছিলাম। কাছে এসে গাড়ি থেকে নেমে শুনলাম এক গৃহপরিচারিকা ঢাকা থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। লক্ষিগঞ্জ নামক স্থানে পৌঁছালে এক বখাটে রাস্তা থেকে জোর করে জঙ্গলে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। কী বীভৎস, কী নির্মম, কী ভয়ঙ্কর!!! করোনা ভাইরাসের ভয়ও থামাতে পারেনি এই বীভৎসতা! পরে রাতেই অভিযান চালিয়ে ঈশ্বরগঞ্জ থানা পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে।’