করোনার মধ্যেই প্রেমিকের বাড়িতে গিয়ে অনশন, মধ্যরাতে বিয়ে

দেশে চলমান করোনা পরিস্থিতির মধ্যে বগুড়ায় প্রেমিকের বাড়িতে গিয়ে রাতভর অনশন করেছেন এক তরুণি। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে গতকাল বুধবার মধ্যরাতে তাদের দুজনের বিয়ে হয়।



ওই দুজনের পরিবার সূত্রে জানা যায়, বগুড়া শহরের সেউজগাড়ি এলাকার এক তরুণীর সঙ্গে একই শহরের নাটাইপাড়া এলাকার রিয়াদ নামের এক যুবকের ফেসবুকে পরিচয় হয়। সেই সূত্র ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। চাকরির সুবাদে তারা দুজনই ঢাকায় থাকতেন। তারা রাজধানীর শেওড়াপাড়ায় স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বাসা ভাড়া নিয়ে একসঙ্গে বসবাস করতেন। করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকারি ছুটি ঘোষণা হলে সেখান থেকে তারা বগুড়ায় আসেন। এরপর রিয়াদ তার প্রেমিকার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন।


তাই ফোনে যোগাযোগ করতে না পেরে গতকাল সকালে ওই তরুণী রিয়াদের বাসায় গিয়ে বিয়ের দাবিতে অনশন শুরু করেন। এ খবর পেয়ে পুলিশ তাদের দুজনকেই সদর থানায় নিয়ে আসে। রাতে একপর্যায়ে মেয়েপক্ষ মামলা করতে চাইলে ছেলেপক্ষ বিয়েতে রাজি হয়।

এরপর উভয় পক্ষের অভিভাবকরা ছেলে এবং মেয়েকে নিজ নিজ জিম্মায় নিয়ে থানা থেকে চলে যায়। গতকাল রাত সাড়ে ১১টার দিকে সদর থানা সংলগ্ন আকবরিয়া হোটেলের পেছনে কাজী ও মাওলানা ডেকে এনে দুই লাখ টাকা মোহরানা নির্ধারণ করে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়।

এ বিষয়ে বগুড়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম বদিউজ্জামান  জানান, ছেলে ও মেয়েপক্ষের মধ্যে বিয়েতে সমঝোতা হওয়ার পর নিজ নিজ জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তবে রাতে বিয়ে হয়েছে কি না, তা জানি না।