করোনার প্রথম ভ্যাকসিন ! ভিডিও সহ

মহামারি করোনা ভাইরাসে বিশ্বব্যাপী সাত হাজারের অধিক লোকের প্রাণহানি ঘটেছে। এমন পরিস্থিতিতে ভাইরাসটির সংক্রমণ ঠেকাতে এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে শুরু হয়েছে বহুল কাঙ্ক্ষিত করোনার ভ্যাকসিনের পরীক্ষা।


আজ থেকে ওয়াশিংটন রাজ্যের সিয়াটল শহরের কেইসার পার্মানেন্ট রিসার্চ সেন্টারে এই ভ্যাকসিন পরীক্ষার কার্যক্রম শুরু হয়। দ্য ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব হেলথের অর্থায়নে মানবদেহে এই প্রাণঘাতী ভাইরাসের ভ্যাকসিনের পরীক্ষা চালানো হচ্ছে। এবার প্রক্রিয়াটিতে অংশ নিচ্ছেন অন্তত ৪৫ স্বেচ্ছাসেবী। মূলত এসব স্বেচ্ছাসেবীদের শরীরেই প্রথম করোনার ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হবে।


এবার প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে আক্রান্ত যে রোগীর শরীরে পরীক্ষামূলকভাবে প্রতিষেধকের প্রথম ডোজ প্রয়োগ করা হয়েছে তার নাম জেনিফার হ্যালার। বর্তমানে তিনি দুই সন্তানের জননী।



প্রতিষেধক প্রয়োগের আগে ৪৩ বছর বয়সী এই নারী বলেন, আমরা সবাই অসহায় বোধ করছি। ভ্যাকসিন পরীক্ষায় অংশ নেওয়া আমার জন্য কিছু করার দারুণ একটি সুযোগ। এ সময় আরও তিন স্বেচ্ছাসেবী ভ্যাকসিন প্রয়োগের অপেক্ষায় ছিলেন। ভ্যাকসিনটি বাজারে আসতে আরও অন্তত এক থেকে দেড় বছর সময় লাগতে পারে।


চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, করোনা ভাইরাস মানুষ ও প্রাণীদের ফুসফুসে সংক্রমণ করতে পারে। ভাইরাসজনিত ঠান্ডা বা ফ্লুর মতো হাঁচি-কাশির মাধ্যমে মানুষ থেকে মানুষে ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস। ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হওয়ার প্রধান লক্ষণগুলো হলো- শ্বাসকষ্ট, জ্বর, কাশি, নিউমোনিয়া ইত্যাদি। তাছাড়া শরীরের এক বা একাধিক অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ নিষ্ক্রিয় হয়ে আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যু হতে পারে।