Sponsored

লাশ রাখার জায়গা নেই ইতালির হাসপাতালে,মৃতদেহ সৎকার যারা করছেন তারাও আক্রান্ত।

করোনাভাইরাস ঝড়ে কাঁপছে ইউরোপের ইতালি। এর মধ্যে প্রতিদিনই বাড়ছে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা। আর অস্বাভাবিক এই মৃত্যুর ফলে মর্গে লাশ রাখা নিয়ে বিপাকে পড়েছে ইতালি। ইতালির মধ্যে সব থেকে ভয়াবহ অবস্থা লোমবার্ডির। ইউরোপের করোনা ভাইরাস বিস্তারের কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে শহরটি। সেখানে হাসপাতালের মর্গে আর লাশ রাখার জায়গা হচ্ছে না।



স্থানীয় একটি চার্চের ধর্মযাজক বলেন, করোনার কারণে প্রতিদিন যেসব মানুষ মারা যাচ্ছেন তাদের নিরাপদে রাখার জায়গা নেই। স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের দাবি রোগীর তুলনায় হাসপাতালের সংখ্যা সীমিত।  হাসপাতালের বেডে রোগীদের রাখার পর্যাপ্ত জায়গা নেই।


মৃতদের সৎকারেও কড়াকড়ি করছে ইতালি সরকার। ভাইরাস যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সেজন্য শেষ প্রার্থনায় অল্প কিছু নিকটজনকে অনুমতি দেয়া হয় অংশগ্রহণে। পরিবারের সদস্যরাও তাতে মাস্ক পরে যোগ দেন। ইতালির আরেক গ্রাম জোঙ্গোতে স্থানীয় পাদ্রিরা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে, তারা দিনে একবার মৃত্যু ঘণ্টা বাজাবেন। কারণ করোনায় মৃত্যুর মিছিল বড় হতে থাকায় সারাদিনই ঘণ্টা বাজাতে হচ্ছিল। এদিকে সৎকারে যারা কাজ করছেন তারাও আক্রান্ত হতে শুরু করেছেন করোনাতে। এতদিন মনে করা হতো মৃত্যুর পর মরদেহ থেকে এ ভাইরাস ছড়াতে পারে না।