Sponsored

দিল্লির দাঙ্গায় হারিয়ে যাওয়া এক শিশুর করুণ গল্প

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে দিল্লি দাঙ্গায় এক হারানো শিশুর করুণ গল্প সামনে এসেছে। কোথায় তার বাড়িঘর, কোথায় তার বাবা-মা, স্বজন কিছুই বলতে পারছে না সে। মাত্র দুই বছর বয়সী শিশুটি মমতার আশ্রয় পেয়েছে দাঙ্গাকবলিত আরেক পরিবারের কাছে।



২৪ ফেব্রুয়ারির ঘটনা। এক বাড়ি থেকে আরেক বাড়ি ঘুরে ঘুরে খাবার চেয়ে ফিরছে শিশুটি। একবারও নিজের নাম উচ্চারণ করছে না। কেউ তাকে চিনতে পারছে না। উত্তর-পূর্ব দিল্লির শিব বিহারের বাসিন্দা সৌদ আলম মদিনা মসজিদের কাছে কান্নারত অবস্থায় তাকে দেখতে পেয়ে সঙ্গে নিয়ে যান।


দিল্লিতে ২৪ ফেব্রুয়ারির দাঙ্গার সময় সৌদ আলমদের বাড়ির দরজায়ও পৌঁছে যায় সহিংসতা। সংঘবদ্ধ একদল দাঙ্গাবাজ তাদের ভাড়া বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। হিন্দু অধ্যুষিত এলাকায় বসবাসরত অন্য অনেক মুসলমানের মতো আলম আর তার পরিবারের সদস্যরা নিজেদের পরনের কাপড় নিয়েই পালাতে বাধ্য হন।

পালানোর সময় পরিবারটি দেখতে পায়, একটি মসজিদে হামলা চালানো হচ্ছে। তখনই ওই শিশুটিকে একা একা সেখানে কাঁদতে দেখেন সৌদ আলম। শিশুটিকে কোলে তুলে নিয়ে নিজের পরিবারের সঙ্গে তাকে নিয়ে আশ্রয় নেন কাছের বাবুনগর এলাকার অন্য এক মসজিদে। পরে তাদের আশ্রয় হয় একটি খালি বাড়িতে। চমন পার্কের কাছের বাড়িটির মালিক গৃহহীন বেশ কয়েকটি পরিবারকে আশ্রয় দিয়েছেন। আর পরিবার হারিয়ে ফেলা শিশুটি এখন বেঁচে আছে পথচারীদের দয়ায়।

আলম বলেন, 'তার বাবা-মা কে বা কোথায় আছেন, কেউ বলতে পারে না। আমরা যদি তাকে সঙ্গে না আনতাম, তাহলে হয়তো হামলাকারীরা তাকেও মেরে ফেলত।' এ রকম আরও অনেকে তাদের পরিবারের সদস্যদের হারিয়েছেন। খুঁজে ফিরছেন তারা কে কোথায় আছেন। সূত্র : স্ক্রল ডট ইন।