Sponsored

করোনাভাইরাস : ভাড়া নেবেন না ঢাকার এই বাড়িওয়ালা

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি সংবাদ গতকাল থেকেই ঘুরছে। করোনাভাইরাসের কারণে তিন মাস বাড়িভাড়া না নিতে নির্দেশ দিয়েছে উগান্ডা সরকার। বাংলাদেশে সরকারের পক্ষ থেকে এমন সিদ্ধান্ত না এলেও এগিয়ে এসেছেন বাড়িওয়ালা নিজেই। শিউলি হাবীব এই মাসের (মার্চ) ভাড়া না নেওয়ার কথা জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন।



গতকাল শনিবার দুপুর পৌনে একটার দিকে দেওয়া এই বাড়িয়ালা তার ফেসবুক পোস্টে লেখেন,  ‘করোনাভাইরাস মহামারি আকার ধারণ করার কারণে বাংলাদেশের সবকিছুই স্থগিত হয়ে গেছে। কর্মজীবী মানুষ কর্মস্থলে যেতে পারছে না, তাই আমি এদেশের একজন ক্ষুদ্র নাগরিক হিসেবে আমার বাসার সকল ভাড়াটিয়াদের মার্চ মাসের ভাড়া মওকুফ করে দিলাম, আমি আশা করি বাংলাদেশের সকল বাড়িয়ালাদের এই দুর্যোগের সময় ভাড়াটিয়াদের পাশে দাঁড়ানো উচিত। এমতাবস্থায় বাংলাদেশের সকল নাগরিককে ঘরে বসে থেকে করোনা মোকাবেলায় বাংলাদেশ সরকারকে সহযোগিতা করুন।  আল্লাহ এই দুর্যোগ থেকে আমাদেরকে রক্ষা করুন।  আমিন।’


শিউলি হাবীবের এই পোস্টটি মুহূর্তেই ভাইরাল হয়। ১৩০ জনেরও বেশি মানুষ তার স্ট্যাটাসটি শেয়ার করেন, ৪৪ জন ব্যক্তি মন্তব্য করেন ও লাইক পড়ে পাঁচ শতাধিক।

এ বিষয়ে বিস্তারিত কথা বলতে দৈনিক আমাদের সময়ের পক্ষ থেকে তার সঙ্গে থেকে যোগাযোগ করা হলে তিনি এখনো কোনো সাড়া দেননি।

মরণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণে চলমান সংকটে অন্তত তিনমাস বাড়িভাড়া আদায় নিষিদ্ধ করা হয়েছে পূর্ব আফ্রিকার দেশ উগান্ডায়। সম্প্রতি দেশটির প্রেসিডেন্ট ইয়োবেরি মুসেবেনি এমন নির্দেশনা দেন বলে জানা গেছে।  গতকাল শুক্রবার এবিসি নিউজ ঘানার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, উগান্ডার অর্থনীতিতে ইতিমধ্যেই করোনা আতঙ্কের প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। ভাইরাস সংক্রমণের ভয়ে অনেক কর্মীই কাজে যোগ দিচ্ছেন না। এ পরিস্থিতিতে আগামী তিনমাস ভাড়াটিয়াদের কাছ থেকে ভাড়া আদায় না করতে বাড়িওয়ালাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন উগান্ডান প্রেসিডেন্ট।

সরকারের ওই নির্দেশনায় বলা হয়, ‘যদি কোনো বাসার মালিক এই নির্দেশনা অমান্য করেন তাহলে তার ফ্ল্যাটটি সরকার নিয়ে নেবে অথবা তাকে সাত বছরের জেল দেওয়া হবে। এমনটি একই সঙ্গে দুই শাস্তিও তার জন্য কার্যকর করা হতে পারে।’