Sponsored

স্ত্রীর ছিটানো গরম পানিতে দগ্ধ স্বামী মারা গেছেন

রাজধানীর খিলগাঁও উত্তর গোড়ানে ঘুমন্ত অবস্থায় স্ত্রীর দেওয়া গরম পানিতে দগ্ধ স্বামী রাশেদ রানা (২৮) মারা গেছেন। আজ শুক্রবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।



ঢামেকের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে চিকিৎসা নেওয়া রাশেদ রানার শরীরে ৮৯ শতাংশ দগ্ধ হয়েছিল। তিনি ভোলার লালমোহন থানার মো. হানিফের ছেলে। 


নিহত রাশেদ রানা খিলগাঁওয়ের উত্তর গোড়ানের একটি ভাড়া বাসায় পরিবার নিয়ে থাকতেন। লিমন (৪) নামে তার এক ছেলে সন্তান রয়েছে।

রাশেদ রানার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন খিলগাঁও থানায় পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ রাহাত খান। তিনি জানান, রাশেদ ঢামেকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। ময়নাতদন্তের জন্য তার মরদেহটি মর্গে রাখা হয়েছে।

খিলগাঁও থানায় পরিদর্শক বলেন, ‘আজ মৃতের স্বজনদের অভিযোগ পেয়েছি।  আমরা তদন্ত করছি।’ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

নিহতের মা রাশেদা বেগম বলেন, ‘গত ২৫ ফেব্রুয়ারি ভোরে আমার ছেলে ঘুমিয়ে ছিল। এ সময় ফুটন্ত গরম পানির সঙ্গে লবণ ও মরিচ মিশিয়ে আমার ছেলের শরীরে ঢেলে দেয় তার স্ত্রী শিল্পী আক্তার লিজা। পরে তাদের একমাত্র সন্তানকে নিয়ে সে পারিয়ে যায়।’ 

রাশেদা বেগম আরও বলেন, ‘পরে আশপাশের লোকেরা তাকে (রাশেদ রানা) উদ্ধার করে ঢামেকের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে ভর্তি করান। আমি ছেলের অফিসের লোকজনের মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে হাসপাতালে গিয়ে ছেলেকে দগ্ধ অবস্থায় পাই। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ ভোরে সে মারা যায়।’

কী কারণে ওই ঘটনা ঘটেছিল, তা জানাতে পারেননি নিহতের মা রাশেদা বেগম।