Sponsored

লঞ্চ বন্ধ, দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটে উপচে পড়া ভিড়

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জনসমগম রোধে ছুটি ঘোষণা করে সবাইকে ঘরে থাকার পরামর্শ দেয়া হলেও বাড়ি ফিরছেন সাধারণ মানুষ। আজ সকাল থেকে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার প্রবেশদ্বার হিসাবে পরিচিত রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া প্রান্ত দিয়ে বিপুল সংখ্যক মানুষ বাড়ি ফিরছেন। দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে এখন পর্যন্ত ছোট-বড় ১৪টি ফেরি চলাচল করলেও যাত্রী ও ট্রাক পারাপারে হিমসিম খেতে হচ্ছে কর্তৃপক্ষকে। এ রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকার কারণে ফেরিতে প্রচন্ড ভিড় রয়েছে।



ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা যাত্রীরা বলেন, আমাদের তো করেনা ভাইরাস নেই। আমরা বাড়িতে গিয়েই পরিবারের সাথে ঘরে থাকবো। এতে কারো কোন সমস্যা হবে না।
পথে কোন সমস্যা হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে কয়েকজন যাত্রী বলেন, ঠিক ঈদের মতো। এখনতো আর মানুষ ঢাকাতে যাচ্ছে না বরং আসছে। অতিরিক্ত ভাড়া ছাড়া তেমন কোন সমস্যা হচ্ছে না বলেও জানান তারা।


দৌলতদিয়াতে দায়িত্বরত ট্রাফিক সার্জেন্ট সঞ্জিব বলেন, গতকাল  ঈদের সময় থেকে যাত্রী আসর পরিমান বেশি ছিলো। আজকে যাত্রীর চাপ অপেক্ষাকৃত কম হলেও দেখে মনে হচ্ছে ঈদযাত্রায় বাড়ি যাচ্ছেন যাত্রীরা।


বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্পোরেশন এর দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের ব্যবস্থাপক মো. আবু আব্দুল্লাহ রনি বলেন, আমরা শুধুমাত্র জরুরী পণ্যসামগ্রী পারাপারের জন্য দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ১৪টি ফেরি চালু রেখেছি। কিন্তু দৌলতদিয়া প্রান্ত দিয়ে ঘরে ফেরা মানুষের ব্যাপক চাপ রয়েছে। তিনি আরো বলেন, ১০ দিন ছুটি দেবার কারণে মানুষ ঈদের মতো বাড়ি আসছে। আবার যখন ছুটি শেষ হবে তখন এই সংখ্যক মানুষ আবার ঢাকায় ফিরবে