Sponsored

যেভাবে শরীরে প্রবেশ করে করোনাভাইরাস

"ড্রপলেট” আর “এয়ারবোর্ন” শব্দ দুটোর ভেতর পার্থক্য আছে। করোনাভাইরাস “ড্রপলেট” এর মাধ্যমে ছড়ায়।



ড্রপলেট মানে হাঁচি-কাশির ফলে কারো শরীর থেকে বের হয়ে আসা বিন্দু বিন্দু পানিজাতীয় পদার্থ। করোনাভাইরাস বহনকারী ব্যক্তি সরাসরি হাঁচি বা কাশি দিলে তার সাথে এই ভাইরাস বেরিয়ে আসে। হাঁচি-কাশি দেবার সময় কেউ কাছাকাছি (২ মিটার) থাকলে তার সংক্রমিত হবার আশঙ্কা থাকে। এই ড্রপলেট কোথাও পড়লে সেখানে কয়েক ঘণ্টা ভাইরাসটি থাকে।



এই সময়ে কেউ ওই স্থান স্পর্শ করলে ভাইরাসটি তার হাতে যায়। সেই হাতে মুখ-নাক-চোখ স্পর্শ করলে শরীরের ভেতর তা ঢুকে যায় ও মানুষটি আক্রান্ত হয়।



এখন পর্যন্ত বিজ্ঞানীদের ভাষ্যমতে, করোনাভাইরাস এয়ারবোর্ন বা বায়ুবাহিত ভাইরাস নয়। ফলে বাতাসে ভেসে অনেকদূর গিয়ে তা অন্য কাউকে সংক্রামিত করতে পারে না।